শুরু করা

মোবাইল ডিভাইসের জন্য সাইট তৈরি করার সময় কোন তিনটি বিষয় আমাকে মনে রাখতে হবে?

১. গ্রাহকরা যাতে সহজে সাইট ব্যবহার করতে পারেন তা দেখা।

আপনার সাইটের মাধ্যমে ভিজিটরদের উদ্দেশ্যগুলি পূরণ করতে সাহায্য করুন। তারা হয়ত আপনার ব্লগ পোস্ট পড়ে আনন্দ পেতে চান, আপনার রেস্তোরাঁর ঠিকানা জানতে চান অথবা আপনার প্রোডাক্ট সম্পর্কে পর্যালোচনা পড়তে চান। Walgreens-এর GVP ও ই-কমার্সের মুখ্য টেকনোলজি অফিসার অভি ধর জানান, "মোবাইলে আমরা যা করি তার সাহায্যে গ্রাহকদের জীবনকে আরও সহজ করে তোলাই হল আমাদের উদ্দেশ্য।"

গ্রাহক যাতে আপনার সাইটে সহজে আসতে পারেন এবং তার কাজ সম্পূর্ণ করতে পারেন, সেইভাবে সাইটটি ডিজাইন করুন।

পরিকল্পনা থেকে কাজ সম্পূর্ণ করা পর্যন্ত গ্রাহক সম্ভাব্য যে ধাপগুলি নিতে পারেন সেগুলির একটি খসড়া তৈরি করুন, যাতে মোবাইল ডিভাইসে সেগুলি সহজে সম্পূর্ণ করা যায়। ব্যবহারকারীর ইন্টার‍্যাকশনের প্রয়োজনীয়তা কম করতে, তার অভিজ্ঞতাকে আরও সরল করে তোলার চেষ্টা করুন। এই উদাহরণ অনুযায়ী: (১) গ্রাহক ল্যাম্প কেনার জন্য সার্চ করেন এবং একটি সাইটে ক্লিক করেন; (২) বেশ কিছু ল্যাম্প দেখেন; এবং (৩) পছন্দসই ল্যাম্পটি কেনেন।

২. মোবাইলে কত সহজে আপনার গ্রাহকেরা তাদের সাধারণ কাজ সম্পূর্ণ করতে পারছেন তার মাধ্যমে সাইটের উপযোগিতা মাপা।

মোবাইল সাইট তৈরি করার জন্য কোন বিষয়কে প্রাধান্য দিতে হবে তা জানা দরকার। মোবাইলে আপনার গ্রাহকদের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও সাধারণ কাজ কোনগুলি তা জেনে শুরু করুন। এই কাজগুলিকে সহজে করতে দিতে পারাটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, তাই গ্রাহকেরা কত ভালোভাবে তাদের উদ্দেশ্য পূরণ করতে পারছেন তার উপর নির্ভর করে আপনার মোবাইল সাইটের উপযোগিতা মাপা হয়। সাইটের ডিজাইনের মাধ্যমে সেটির ব্যবহার সহজ করে তোলার অনেক উপায় আছে। ইন্টারফেসে সঙ্গতি রাখুন ও সব প্ল্যাটফর্মে সামঞ্জস্যপূর্ণ অভিজ্ঞতা প্রদান করার দিকে নজর দিন।

MediaPost-এর মতে, "কেনাকাটার জন্য যারা মোবাইল সাইট ব্যবহার করেন তারা সাইটটি কত সহজে ব্যবহার করা যাচ্ছে তার উপর খুব গুরুত্ব দেন, ৪৮% উত্তরদাতা মনে করেন যে সেটি সাইটের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কোয়ালিটি।"

৩. সব ডিভাইসের জন্য সামঞ্জস্যপূর্ণ মোবাইল টেমপ্লেট, থিম অথবা ডিজাইন (যেমন প্রতিক্রিয়াশীল ওয়েব ডিজাইন ব্যবহার করা) বেছে নেওয়া।

ব্যবহারকারী ডেস্কটপ কম্পিউটার, ট্যাবলেট বা মোবাইল ফোন যাই ব্যবহার করুন না কেন, রেসপন্সিভ ওয়েব ডিজাইন-এর ক্ষেত্রে কোনও পৃষ্ঠা একই ইউআরএল এবং একই কোড ব্যবহার করে – সেটি শুধু স্ক্রিন সাইজের উপর নির্ভর করে অ্যাডজাস্ট হয় বা প্রতিক্রিয়া জানায়। Google অন্য ডিজাইনের পরিবর্তে প্রতিক্রিয়াশীল ওয়েব ডিজাইন ব্যবহার করা সাজেস্ট করে। রেসপন্সিভ ওয়েব ডিজাইনের একটি সুবিধা হল যে আপনার সাইটের দু'টি ভার্সনের পরিবর্তে একটি ভার্সন রাখলেই চলে। আপনাকে ডেস্কটপ সাইটের জন্য www.example.com এবং মোবাইল ভার্সনের জন্য m.example.com তৈরি করতে হবে না – বরং, ডেস্কটপ ও মোবাইল ভিজিটরদের জন্য শুধু www.example.com তৈরি করলেই চলবে।

একই ইউআরএল ও কোড ব্যবহার করে একটি রেসপন্সিভ সাইট নিজেকে বিভিন্ন স্ক্রিন সাইজ অনুযায়ী পরিবর্তন করে। উপরের তিনটি ডিভাইসে শুধু www.example.com (মোবাইল পৃষ্ঠার জন্য m.example.com এবং ট্যাবলেটের পৃষ্ঠার জন্য t.example.com-এর পরিবর্তে) খোলা আছে।

"রেসপন্সিভ ওয়েব ডিজাইন ব্যবহার করার মাধ্যমে Baines & Ernst একাধিক ওয়েবসাইট তৈরি না করেই বিভিন্ন স্ক্রিন সাইজে গ্রাহকদের জন্য অভিজ্ঞতাকে অপ্টিমাইজ করতে পেরেছে।" কোম্পানির প্রতিনিধিরা আরও দেখেন, "দর্শকেরা প্রতিবার সাইটে আসার পরে ১১% বেশি পৃষ্ঠা দেখেছেন এবং মোবাইল কনভার্সন ৫১% বেড়েছে।"

প্রোডাক্ট কেনা, ব্যবসার প্রতিনিধিকে কল করা অথবা নিউজলেটারের জন্য সাইন-আপ করার মতো ব্যবসার জন্য অভিপ্রেত কোনও কাজ করলে সেটি 'কনভার্সন' হিসেবে ধরা হয়।

রেসপন্সিভ ওয়েব ডিজাইন কীভাবে প্রয়োগ করতে হয় সেই বিষয়ে আরও জানতে, ওয়েবের মূল নীতি দেখুন। ডেস্কটপ, ট্যাবলেট ও মোবাইল ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ধরনের প্রয়োগের ক্ষেত্রে সুবিধা ও অসুবিধাগুলি জানতে চাইলে, একাধিক স্ক্রিন ব্যবহার করেন এমন গ্রাহকের জন্য ওয়েবসাইট তৈরি করা অংশটি পড়ুন।

অনভিজ্ঞ ব্যক্তিদের কোন তিনটি ভুল এড়িয়ে চলা উচিত?

প্রথম ভুল - মোবাইল গ্রাহকদের কথা ভুলে যাওয়া।

ভাল মোবাইল সাইট কাজে লাগে – এর মাধ্যমে ভিজিটররা বিভিন্ন কাজ সম্পূর্ণ করতে পারেন, যেমন একটি আকর্ষণীয় নিবন্ধ পড়া বা স্টোরের লোকেশন জেনে নেওয়া। সম্পূর্ণ কার্যকারিতা প্রদান না করে, শুধু মোবাইলের জন্যই ফর্ম্যাট করা সাইট তৈরি করার প্রবণতা এড়িয়ে যান। এর পরিবর্তে, একটি মোবাইল-ফ্রেন্ডলি সাইট (যেটি গ্রাহকদের পক্ষে খুব উপযোগী ও তাদের সাধারণ কাজগুলি সম্পূর্ণ করার জন্য অপ্টিমাইজ করা) তৈরি করুন।

দ্বিতীয় ভুল - ডেস্কটপ সাইটের থেকে আলাদা ডোমেন, সাবডোমেন বা সাবডিরেক্টরিতে মোবাইল সাইট তৈরি করা।

Google একাধিক মোবাইল সাইট কনফিগার করতে দিলেও, আলাদা মোবাইল ইউআরএল রক্ষণাবেক্ষণ ও আপডেট করার জন্য প্রচুর সময় লাগে এবং প্রযুক্তিগত সমস্যা দেখা দিতে পারে। আপনি রেসপন্সিভ ওয়েব ডিজাইন (RWD) ব্যবহার করে আপনার কাজকে সহজ করে তুলতে পারেন এবং একই ইউআরএলে ডেস্কটপ ও মোবাইল সাইট দেখাতে পারেন। Google কনফিগারেশন হিসেবে রেসপন্সিভ ওয়েব ডিজাইন সাজেস্ট করে।

তৃতীয় ভুল - অন্যদের থেকে অনুপ্রেরণা না নিয়ে একা একা কাজ করে যাওয়া।

একই বিষয়ে বা প্রতিযোগীর সাইট দেখে অনুপ্রেরণা পান ও পেশাদার পদ্ধতি সম্পর্কে জেনে নিন। যেহেতু মোবাইল সাইট আপনার আগেও অনেকে তৈরি করেছেন, তাই তাদের থেকে আপনি শেখার সুযোগ নিতে পারেন। The Mobile Playbook এবং একাধিক স্ক্রিন ব্যবহার করার ফলে যে সাফল্যের গল্প Google সংগ্রহ করেছে সেগুলি থেকেও আপনি অনেক কিছু জানতে পারবেন।